জুয়া খেলে সর্বস্বান্ত, নিজের সন্তান বিক্রি!

0
94

কুমিল্লার দেবিদ্বারে বাবার বিরুদ্ধে দুই লাখ ৫৫ হাজার টাকায় পাঁচ মাসের শিশুকে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার জাফরগঞ্জ ইউপির বারুর গ্রামের মুন্সি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত মো. সেলিম মিয়া একই বাড়ির বাসিন্দা। শিশুটির নাম ইয়াছিন।

শিশুর মা বিলকিস বেগম বলেন, একটি মাইক্রোবাসে কয়েকজন আমার কোল থেকে শিশুকে ছিনিয়ে নিতে চেষ্টা করে। তাকে দিতে না চাইলে স্বামী মারধর করেন। এক পর্যায়ে তারা সন্তানকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। তার বাবা চরবাকর গ্রামের বলিমন্দের বাড়ির নুরুল ইসলামের মাধ্যমে দুই লাখ ৫৫ হাজার টাকায় বিক্রি করেছে বলে খবর পেয়েছি। সে জুয়া খেলে সর্বস্বান্ত হয়েছে। এখন ছেলেকে বিক্রি করেছে। আমার সন্তান কোথায় আছে জানি না। তাকে ফেরত চাই।

অভিযুক্ত স্বামী সেলিম মিয়া বলেন, ২২ বছর আগে বিয়ে করি। স্ত্রী ও পাঁচ ছেলে এবং এক মেয়ে নিয়ে অভাবে দিন কাটছে। তাই কুমিল্লার এক নিঃসন্তান পরিবারে ছেলেকে দত্তক দিয়েছি। এর বিনিময়ে টাকা পয়সা নেইনি। সন্তান ভাল থাকবে, লেখাপড়া শিখবে, মানুষের মতো মানুষ হবে।

নুরুল ইসলাম বলেন, সন্তান বিক্রয় করা হয়নি।ওই পরিবারের সম্মতি নিয়েই কুমিল্লার এক নিঃসন্তান শিক্ষক পরিবারে দত্তক দিয়েছি। তবে পরিবারের পরিচয় জানি না। যার কাছে শিশুটি দিয়েছি, তার নাম্বার নেন।

ফোন দিলে শামীম নামের এক শিক্ষক বলেন, আমি নিঃসন্তান। অনেকদিন ধরে একটি সন্তান দত্তক নেব বলে খোঁজছি। ছাত্রের মাধ্যমে সন্তান দত্তক নেয়ার মাধ্যম নুরুল ইসলামকে পাই। সে দুই লাখ টাকা দাবি করে। তবে আমার সামর্থ না থাকায় শিশুটিকে অন্য একটি ধনাঢ্য নিঃসন্তান পরিববারকে দেই।

তিনি বলেন, ১৬ মার্চ এসে বাচ্চা দেখে পছন্দ করেন অন্য নিঃসন্তান পরিবার। ২৯ মার্চ ৩ শ’ টাকার নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে এ বাচ্চা আর কখনো দাবি করতে পারবে না, তার খোঁজখবরও নিতে পারবে না শর্তে তিনজন সাক্ষীর স্বাক্ষর নিয়ে ২ লাখ ৫৫ হাজার টাকা দিয়ে বাচ্চা নেয়া হয়।

তিনি আরো বলেন, বাচ্চা গ্রহীতার নাম মঞ্জু, তিনি চট্টগ্রামে অডিটর হিসেবে কর্মরত আছেন। বাচ্চাটি ভালো থাকবে। তিনি বিশাল সম্পদের মালিক। বড় হলে শিশুটি সবকিছুর মালিক হবে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদ জানান, বিষয়টি শুনেছি। সবার সঙ্গে যোগাযোগ করে বাচ্চাটিকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করব।

দেবিদ্বার ইউএনও রবীন্দ্র চাকমা বলেন, এ বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেনি। যেহেতু বিষয়টি শুনেছি, তদন্ত করে বাচ্চা উদ্ধারসহ আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here