পাবনার সুজানগরে এক হিন্দু ঠিকাদারের পরিবার ১৫ দিন গৃহবন্দি

0
51

শফিউল আযম, বেড়া (পাবনা) সংবাদদাতা ঃ
সুজানগর দলিল লেখক সমিতির সভাপতি মো: ইসমাইল হোসেনের ক্ষমতার দাপটে একটি হিন্দু পরিবার ১৫ দিন ধরে গৃহবন্দি অবস্থায় মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন।অসহায় এ পরিবারের পুরুষ সদস্য ঠিকাদার চিত্ত রঞ্জন সাহা এক বন্ধুর সহায়তায় বাড়ি থেকে বেড় হয়ে সোমবার সুজানগর থানায় এ ব্যাপারে অভিযোগ করেছেন।
অভিযোগে জানা গেছে, সুজানগর পৌর এলাকার ভবানীপুরে ঠিকাদার চিত্ত রঞ্জন সাহা ১৫ বছর পুর্বে রাম কৃষ্ণ বিশ^াসের জমি কিনে বাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করে আসছেন।তিনি বাড়ির পশ্চিম পাশের জায়গা রাস্তা হিসেবে ব্যবহার করেন।গত জুলাই ১৮সালে সুজানগর স্বাস্থ্য কেন্দ্রের মেডিকেল এ্যাসিসটেন্ট মো ইসলাম পাশের দাগের জায়গা কিনে চারিদিকে টিনের বেড়া দিয়ে আটকে দেন। চিত্ত রঞ্জন সাহা পাশের রতন কুমার দাসের জায়গার উপর দিয়ে যাতায়াত করতে থাকেন। সে ও জায়গা আটকে দিলে পাশের উজ্জ্বল কুমার বিশ^াসের জায়গার উপর দিয়ে যাতায়াত করতে থাকেন।এরপর ২ বছর পুর্বে চিত্ত রঞ্জন সাহার যাতায়াতের জায়গা দিতে সুজানগর পৌরসভায় এক সালিস বেঠক হয়। বেঠকে পৌর মেয়র আব্দুল ওহাব দশমিক শুন্য দশমিক ৫ শতাংশ জায়গার জন্য রতন কুমার দাসকে দেড় লাখ টাকা দেয়ার কথা ঘোষণা করেন। সে মোতাবেক চিত্ত রঞ্জন সাহা মেয়রের মাধ্যমে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা রতন কুমার দাসকে প্রদাণ করেন। তিনি টাকা নেয়ার পরও জমিটি রেজিষ্ট্রি করতে নানা টালবাহানা করতে থাকেন। এরপর গোপনে উজ্জ্বল বিশ^াস সুজানগর দলিল লেখক সমিতির সভাপতি মো: ইসমাইল প্রামানিকের কাছে তার ৯২দাগের জমি বিক্রি করেন। ইসমাইল প্রামানিক জমি কেনার পর টিনের বেড়া দিয়ে তালাবন্ধ করায় চিত্ত রঞ্জন সাহা বাড়িতে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। তিনি মোবাইলে এ ঘটনা কয়েকজন রাজনৈতিক নেতাকে জানালে ও তারা তাকে কোন সাহার্যে এগিয়ে আসেননি। এর পর ১ জানুয়ারি চিত্ত রঞ্জন সাহা বন্ধু শাজাহান মন্ডলকে তার অসহায় অবস্থা জানালে সে এসে তালা খুলে তাকে বাইরে নিয়ে আসেন।এ সময় ইসমাইল হোসেন ও তার ছেলে তাকে গালি গালাজসহ মারতে উদ্যত হয়।
অন্যদিকে দলিল লেখক সমিতির সভাপতি ইসমাইল হোসেন ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে রতন কুমার দাসকে সালিশের রায়কৃত অন্য দাগের শুন্য দশমিক ৫ শতাংশ জায়গা ও চিত্ত রঞ্জন সাহার যাতায়াতের জন্য রেজিষ্ট্রি করে দিতে বাঁধা সৃষ্টি করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।চিত্ত রঞ্জন সাহা সালিশ বেঠকের সিদ্ধান্ত মতো রতন কুমার দাসকে শুন্য দশমিক ৫ শতাংশ জায়গা রেজিষ্ট্রি করে দিতে বার বার অনুরোধ করলে দলিল লেখক সমিতির সভাপতি ইসমাইল হোসেন না বললে তিনি তাকে এ জায়গা রেজিষ্ট্রি করে দিতে পারবেন না বলে জানান।
এ পরিস্থিতিতে চিত্ত রঞ্জন সাহা বাইরে আসার পর আর নিজ বাড়িতে ঢুকতে পারছেন না আবার বাড়ির সদস্যরাও বাড়ি থেকে বেড় হতে পারছেন না। এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে ঠিকাদার চিত্ত রঞ্জন সাহা সুজানগর থানায় সোমবার অভিযোগ করেছেন। এ অভিযোগের কপি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা প্রশাসকসহ পুলিশ সুপারকে প্রদাণ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here